🏍 টিভিএস আইকিউব ইলেক্ট্রিক স্কুটার ফিচার রিভিউ

  Date: 2020-02-23    Views: 194



বর্তমান সময়ে প্রায় সবগুলা মোটরসাইকেল কোম্পানীই স্কুটার সেগমেন্টের দিকে একটু বেশি মনযোগী হয়ে যাচ্ছে কারন এই দুই চাকার বাহন গুলা সহজেই ব্যবহার উপযোগী যা আমাদের ব্যস্ত জীবনকে অনেকতাই সহজ করে দিচ্ছে। একইসাথে স্কুটার এমন এক ধরনের ডিজাইন দিয়ে তৈরি যা পুরুষ এবং মহিলা এমনকি অল্প বয়সের ছাত্র বা ছাত্রীর সাথেও বেশ ভাল মানায়। এই সকল বিষয়গুলাকে মাথায় রেখে আজ আমরা টিভিএসের একটি বিশেষ ইলেক্ট্রীক বাইক নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি যার নাম টিভিএস আই-কিউব ইলেক্ট্রিক। টিভিএসের এই আই-কিউব স্কুটার আপনাকে প্রায় সময়ই আপনার প্রত্যাশার চেয়ে বেশি সার্ভিস দিবে এটা বলাই যায়। কারন অন্যান্য স্কুটারের থেকে এর রান করার সক্ষমতা, এক চার্জে অনেক দূর যাওয়ার ক্ষমতা এবং অতুলনীয় রাইডের অভিজ্ঞতা একইসাথে সহজে ঠিক রাখার মত সকল বৈশিষ্ঠ দিয়ে এই বাইকটা তৈরি কতা হয়েছে। এই সেগমেন্টের অন্যান্য যেকোন স্কুটারের থেকে এই স্কুটারটি অনেক আপডেট ডিজাইন এবং ট্রেন্ড খেয়াল করে এর আকার সমন্বয় করা হয়েছে। শুধুমাত্র আধুনিক ফিচারই না বরং এতে উল্লেখযোগ্য উচ্চ গতি এবং স্মুদ রাইডের জন্য বিশেষভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে যা আপনাকে যেকোন পথে এর বিশেষত্ব অনুভব করাবে। সাধারনত ফুয়েল চালিত প্রতিটা বাইকের একটা বিশেষ চাহিদা থাকে কিন্তু এই ইলেক্ট্রীল বাইকের রয়েছে সকলের দৃষ্টি আকর্ষনের ক্ষমতা। নিম্নে টিভিএস আই-কিউবের সকল বিশেষত্ব সংক্ষেপে দেওয়া হলোঃ

ডিজাইনঃ

টিভিএস তাদের এই আই-কিউব স্কুটারে সবচেয়ে ভালটা দিয়েছে বলা যায়। কারন এতে অত্যন্ত্ব সূক্ষ কিছু কাজ করা আছে যা সচরাচর অন্য কোন স্কুটারে নাই আবাত এই ডিজাইনটা হলো সময়পোগী। উজ্জ্বল সিলভার কালার এবং তুলনা করা কঠিন ডিজাইন এই বাইকটা যে কারও নজর সহজেই কাড়তে পারে। সাধারন দৃষ্টিতে এই স্কুটারের এলইডি হেডিল্যাম্পটা ওণেকোতা বেখাপ্পা মনে হতে পারে কিন্তু জ্বালানোর পরে তা হ্যান্ডেলবারের সাথে বেশ ভালভাবেই মানিয়ে যায় পেছনের লাইটের পাশ দিয়ে অসাধারনভাবে উজ্জ্বল রঙ ব্যবহার করা হয়েছে যা আলো জ্বলার সাথে সাথে সকলেরই নজরে আসে।

পারফরমেন্সঃ

টিভিএস আই-কিউবকে সমন্বয় করা হয়েছে ২.২৫ কিলোওয়াট লিথিয়াম-আইওন ব্যাটারি যা ৪.৪ কিলোওয়াটের মোটরকে শক্তি সরবরাহ করে থাকে। এই স্কুটারটি দুই ধরনের রাইডিং মুডে চলে থাকে একটি হলো ইকোনমি এবং আরেকটি হলো পাওয়ার। অন্যদিকে এই ইলেকট্রীক বাইকের সর্বোচ্চ গতি হলো ৭৮ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। একই সাথে টিভিএসে দাবী হলো এই স্কুটারটি এক চার্জে ৭৫ কিলোমিটার পর্যন্ত চলতে পারবে। এর ব্যাটারিটা পুরোপুরি চার্জ হতে ৪.৫ ঘন্টা সময় নেয় এর স্টান্ডার্ড ৫ এম্পিয়ারের চার্জারে। একইসাথে এর এযিকেরশন্টাও কিছুটা অবাক করার মত যা ৪.২ সেকন্ডে ০ থেকে ৪০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা গতি তুলতে পারে। এই স্কুটারে রয়েছে ইলেক্ট্রীক হাব মোটর।

চার্জিং:

এই স্কুটারের চার্জিং ফাংশনটা এমনভাবে করা হয়েছে যার দ্বারা আপনি যেকোন জায়গায় একে চার্জ দিতে পারবেন এর জন্যে আপনাকে আলাদাভাবে চিন্তা করতে হবে না। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো এই স্কুটারে রিজেনেরাটিভ চার্জিং ফাংশন ব্যবহার করা হয়েছে যার সাহায্যে আপনি স্কুটারটি চালানোর সময় কিছুটা হলেও চার্জের ব্যাকআপ পাবেন। আপনি ৫এ এডাপ্টর সকেট এবং চার্জিং কেবল ব্যবহার করে যে কোন স্থানে চার্জ দিতে পারবেন।

টায়ার এবং সাসপেনশনঃ

সামনে এবং পেছনে টিউবলেস টায়ার ব্যবহার করা হয়েছে এবং সেগুলার মাপ হলো ৯০/৯০-১২ এবং এই টায়ারগুলা প্লেস করা হয়েছে এলয় হউলের ওপর যা আপনাকে আরও ভাআল পারফরমেন্স দিবে যা অনেক দিন পর্যন্ত স্থায়ী হবে।

পক্ষান্তরে সাসপেনশনের ক্ষেত্রে টিভিএস ব্যবহার করেছে টেলিস্কপিক ফর্ক সাসপেনশন সামনের চাকায় এবং হাইড্রলিক টুইন টিউব শক এব্জরভার পেছনের চাকায়।

অতিরিক্ত সুবিধাসমুহঃ

- ১৫০এমএম গাউন্ড ক্লিয়ারেন্স এবং ওজন ১১৮ কেজি
- মালপত্র বহন করার পর্যাপ্ত জায়গা
- সুবিধাজনক চার্জিং পোর্ট
- হ্যান্ডেলবার ১০ ডিগ্রী পর্যন্ত ঘুরতে পারে
- ১৪০এনএম টর্ক